macher matha diye dal recipe | মাছের মাথা দিয়ে ডাল

মাছের মাথা দিয়ে মুগের ডাল

macher matha diye dal recipe মাছের মাথা দিয়ে ডাল বাঙ্গালীদের একটি অত্যন্ত প্রিয় ও পুরনো আমলের সাবেকি রান্না। বিয়ে বাড়ি, অন্নপ্রাশন ইত্যাদি অনুষ্ঠান বাড়িতে এই রান্নাটা আগে খুবই হত। এখনো পর্যন্ত দিনের বেলায় অর্থাৎ বিয়ের দিন দুপুরে বা পরের দিন মাছের মাথা দিয়ে ডাল হয়েই থাকে। বাড়িতেও খুব সহজে ঘরোয়া পদ্ধতিতে এই ডাল রান্না করা যায়। তবে রান্না করার আগে বাজারে মাছ কিনতে যাওয়ার সময় একটু বড় সাইজের অর্থাৎ দেড় কিলো বা দু কিলো ওজনের রুই বা কাতলা মাছের মাথা যদি পাওয়া যায় তাহলে রান্না একবারে জমে যাবে। রান্না আরো ভাল হবে যদি মাছের মাথার সাথে সোনামুখ ডাল ব্যবহার করা হয়। 

উপকরনঃ

  • বড় কাতলা বা রুই মাছের মাথা ২ পিস
  • মুগের ডাল
  • আদা কুচি,
  • হলুদ গুড়ো,
  • লঙ্কা গুঁড়ো,
  • কাঁচালঙ্কা কুচি,
  • অল্প লবণ,
  • টমেটো কুচি,
  • সর্ষের তেল,
  • রসুন কুচি ও পেঁয়াজ কুচি,
  • ঘি,
  • গরম মশলা,

macher matha diye dal প্রস্তুতিঃ

মাছ- মাছের মাথা দিয়ে মুগ ডাল বানানোর জন্য একটা বড় সাইজের রুই বা কাতলা মাছের মাথা কেটে নিতে হবে। দুখানা মাছের মাথা হলে খুবই ভালো হয়। অনেক সময় বাজারে মাছের মাথা আলাদা করে কিনতে পাওয়া যায়। তবে মাছের মাথা কেনার সময় একটু সতর্ক হয়ে কিনতে হবে। মাছটা যেন দেশি অর্থাৎ লোকাল এবং টাটকা হয়। যখন মাছের মাথা বা মুড়ো কাটবেন তখন যেন মাছের মাথায় কিছুটা মাংস থাকে। দোকান থেকে কেনার সময়ই মাছের মাথাটা মাঝখান দিয়ে চিরে আধখানা করে নেবেন। গোটা মাছের মাথা দিয়ে সেদ্ধ হতে সমস্যা হয়। ভেতরে কাঁচা থেকে যায় তাই মাছের মাথাটা মাঝখান দিয়ে দু-‘টুকরো করে নেয়াই ভাল। 

আদা পেঁয়াজ রসুন-  মাছের মাথা দিয়ে ডাল একটা আমিষ রান্না। আর এখানে মাছের মাথা ব্যবহার করা হচ্ছে। তাই এই রান্নাতে আদা, পিয়াজ ও রসুন লাগবেই। আদা ও পেঁয়াজ ভালোভাবে ছাড়িয়ে নিতে হবে। একটা পিয়াজ ও 50 গ্রাম আদা, সাথে তিন থেকে চার কোয়া রসুন নিলেই হবে। ভালোভাবে ছাড়ানোর পর আদা, পিয়াজ ও রসুন পেস্ট করে নিতে পারেন।

  চিংড়ি ভাপা | Chingri bhapa recipe bengali Style

মাছের মাথা দিয়ে ডাল প্রনালী macher matha diye dal recipe:

  • Step_1: প্রথমে মুগের ডালটাকে কড়াতে নিয়ে খোলায় ভেজে নিতে হবে। তারপর লাল হয়ে গেলে ডালের মধ্যে জল ঢালতে হবে। এরপর প্রেসার কুকারে ভাজা ডালটা ঢেলে দিতে হবে। 
  • Step_2: তারপর ওর উপর আদা কুচি, হলুদ গুড়ো, লঙ্কা গুঁড়ো, কাঁচালঙ্কা, অল্প লবণ, টমেটো কুচি এবং অল্প একটু সর্ষের তেল দিয়ে প্রেসার কুকারটাকে ঢাকা দিয়ে গ্যাসে বসাতে হবে। তারপর চার পাঁচটি সিটি বাজিলের কুকারটাকে নামিয়ে ফেলতে হবে। 
  • Step_3: এরপর আর একদিকে একটা বড় সাইজের রুই মাছ কিংবা কাতলা মাছ ভালোভাবে কেটে নিয়ে সেটি থেকে বড় সাইজের মুড়ো বের করে ভালো করে ধুয়ে মাছটাতে হলুদ মাখাতে হবে। তারপর কড়াতে সরষের তেল গরম করে মুড়ো গুলোকে ভাল করে ভেজে নিতে হবে। ভাজা হয়ে গেলে মাছটা কড়া থেকে তুলে নিতে হবে।
  • Step_4: এরপর ওই মাছ ভাজার কড়াতে একটু রসুন কুচি ও পেঁয়াজ কুচি দিয়ে একটু ভেজে নিতে হবে। এবার আগে থেকে ভেজে রাখা মুগের ডালটা কড়াতে দিয়ে ওর উপর জল দিয়ে দিতে হবে। তারপর জলটি দেওয়া হয়ে গেলে ওর উপর মাছের মাথা গুলো অল্প করে ভেঙে দিতে হবে। এবার পরিমান মত লবণ ও মিষ্টি দিয়ে কিছুক্ষণ ফোটাতে হবে।
  • Step_5: তারপর ফোটানো হয়ে গেলে একটু ঘি গরম মশলা দিয়ে ভালো করে নেড়ে নামিয়ে নিতে হবে। এইভাবে তৈরি হয়ে গেল মাছের মাথা দিয়ে মুগের ডাল 

পরিবেশনঃ 

মাছের মাথা দিয়ে ডাল গরম গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করা হয়।  তবে ঘন মুগের ডাল লুচির সাথেও খাওয়া যায়। মাছের মাথা দিয়ে ডাল যখন রান্না করা হয় তখন সাধারণ মুগ বা মুসুর ডাল খেতে খুব ভালো হয়ে যায়।

টিপস:

  • মাছ কেনার সময় দেশি মাছ হলে অর্থাৎ পুকুরের লোকাল টাটকা মাছ হলে খুব ভালো হয়। যদি টাটকা মাছ না পাওয়া যায় তাহলে চালানি মাছ দিয়েও এই রান্না করা যায়। কিন্তু মাছের মাথাতে যেন কোন পাকের গন্ধ না থাকে। সেদিকে একটু লক্ষ্য রাখতে হবে না হলে রান্নার স্বাদ খারাপ হয়ে যাবে।
  • রান্না করার সময় ডাল একটু বেশি পরিমাণে নিতে হবে ও জল যখন মেশাবেন তখন যেন বেশি না মিশিয়ে ফেলেন। কারণ এই মাছ দিয়ে ডাল macher matha diye dal একটু ঘন ঘন তৈরি হলে খেতে ভালো লাগে।
  মজাদার চিলি সোয়াবিন বানিয়ে ফেলুন । Chilli Soyabean Recipe

 ইলিশ মাছের মাথা দিয়ে কচু শাক | Kochu shak with hilsa

চিতল মাছের মুইঠ্যা রেসিপি | Chital macher muithya | Chital fish

FAQ:

মাছের মাথা দিয়ে  মুগের ডাল রান্না করার সময় কি কি মাছের মাথা ব্যবহার করা যেতে পারে?

 সাধারণত যেকোনো বড় মাপের রুই, কাতলা, মৃগেল ইত্যাদি মাছের মাথা ভাল করে ভেজে নিয়ে ভেঙে ডালে দেওয়া হয়। তবে ইলিশ মাছের মাথাও দেওয়া যেতে পারে।

Leave a Comment